ব্রেকিং নিউজ >>>
ঢাকা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭, ২৮ অগ্রহায়ন ১৪২৪
ICT News | Online Newspaper of Bangladesh |
প্রথম পাতা » উপকূলের প্রযুক্তি » যুক্তরাজ্যের স্কুলের সঙ্গে সংযুক্ত হচ্ছে উপকূলের প্রত্যন্ত গ্রামের স্কুল
রবিবার ● ১৯ অক্টোবর ২০১৪
Decrease Font Size Increase Font Size Email this News Print Friendly Version

যুক্তরাজ্যের স্কুলের সঙ্গে সংযুক্ত হচ্ছে উপকূলের প্রত্যন্ত গ্রামের স্কুল

img_0732.jpgরফিকুল ইসলাম, ভোলা ঘুরে এসে  ।। ওরা শিখছে। বাড়ছে ওদের জ্ঞানের পরিধি। ওদের ওপর পড়েছে তথ্য-প্রযুক্তির আলো। পড়ালেখা এগিয়ে নিতে, জীবনকে সহজ করতে ওরা যুক্ত হচ্ছে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে। পড়ুয়ারা আলোচনা করে নিজেদের সমস্যার সমাধান নিজেরাই খুঁজে নিচ্ছে। মেঘনাপাড়ের নানামূখী সংকটে বেড়ে ওঠা তরুণদের ওপর পড়ছে তথ্য-প্রযুক্তির আলো।

গল্পটা ভোলার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। জেলা শহর থেকে প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার দূরে সদরের বাপ্তা ইউনিয়নের এই বিদ্যালয়ের অধিকাংশ ছেলেমেয়ে বিপন্ন পরিবার থেকে এসেছে। তবুও তারা পিছিয়ে নেই। প্রযুক্তি তাদের এগিয়ে দিচ্ছে। ব্রিটিশ কাউন্সিল এর ‘কানেক্টিং ক্লাশরুমস প্রোগ্রাম’ রয়েছে এ বিদ্যালয়ে। এর অধীনে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ক্লাসও হচ্ছে নিয়মিত।

বিদ্যালয়ের কম্পিউটার শিক্ষক অসীম আচার্য্য’র সঙ্গে আলাপ। জানালেন তথ্য-প্রযুক্তির কল্যাণে বিদ্যালয়ের এগিয়ে যাওয়ার কথা। যে বিষয়গুলো বিদ্যালয়ের ছেলেমেয়েরা কখনো কল্পনাও করেনি, সেগুলো এখন তাদের হাতের মুঠোয়। লেখাপড়ার প্রয়োজনে ইন্টারনেট ঘেঁটে তথ্য বের করা, ই-মেইলে দেশে-বিদেশে যোগাযোগ করা, এসব এখন ওদের কাছে খুবই সহজ কাজ। পড়ুয়ারা তথ্য-প্রযুক্তির ক্লাস ফাঁকি দিতে চায় না। শেখার আগ্রহও রয়েছে প্রবল।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানালেন, বিদ্যুৎ সংকট, স্থান অভাব, শিক্ষকের অভাব আর কম্পিউটার ল্যাব রক্ষণাবেক্ষণে জলবল ও বাজেট বরাদ্দ না থাকায় কার্যক্রম আরও সম্প্রসারণ করা যাচ্ছে না।

ভোলায় দীর্ঘ ৫ বছর ধরে শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে ব্রিটিশ কাউন্সিল এর ‘কানেক্টিং ক্লাশরুমস প্রোগ্রাম’। প্রথমিক অবস্থায় কর্মসূচির আওতাভূক্ত ভোলা সদরের ৫টি বিদ্যালয়ের মধ্যে একটি টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। অন্য চারটি বিদ্যালয় হচ্ছে ; ভোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ভোলা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়, ভোলা পৌর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চরনোয়াবাদ মুসলিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়। দেশের ১৬টি জেলার এই কার্যক্রম শুরু হয়। কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ক্লাষ্টার তৈরি করা হয়। এ ক্লাষ্টারের কো-অডিনেটর হিসাবে দয়িত্ব পালন করছেন টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অসীম আচার্য্য।

কানেক্টিং ক্লাশরুমস প্রোগ্রাম-এর আওতায় যুক্তরাজ্যের ৪টি বিদ্যালয়ের সাথে ভোলা জেলার এই ৫টি বিদ্যালয় সম্পৃক্ত হয়েছে। শিক্ষা কার্যক্রমের বিভিন্ন বিষয় বিনিময় ও সহযোগিতা অব্যাহত থাকে কার্যক্রমের আওতায়। এর মাধ্যমে দুই দেশের সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটি সুসম্পর্ক স্থাপন হয়।

৫টি বিদ্যালয়ের সকল সহপাঠক্রমিক শিক্ষার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ২০১২ ইং সালে ভোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, চরনোয়াবাদ মুসলিম মাধ্যমিক  বিদ্যালয় ও টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয় এই চারটি বিদ্যালয়কে ব্রিটিশ কাউন্সিল ‘‘ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এওয়ার্ড’’ প্রদান করে। প্রোগ্রাম এর অধীনে বিশ্ব নাগরিকত্ব, জলবায়ু পরিবর্তন সহ বিশ্বের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের পর্যাপ্ত ধারনা সহ সহপাঠক্রমিক শিক্ষার উপর যথেষ্ঠ গুরুত্ব দেয়া হয়।

যুক্তরাজ্য থেকে ২০১০, ২০১১ ও ২০১২ সালে মোট ১৫ জন শিক্ষক ভোলা জেলার ৫টি বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করে তাদের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন কর্মকান্ডগুলো বিনিময় করেছেন। ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ভোলা জেলার সাবেক মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা  মোকাম্মেল হক ও বর্তমান জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা প্রান গোপাল দে এবং ভোলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের গভেষনা কর্মকর্তা নূরে আলম সিদ্দিকি প্রত্যেকে একবার করে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন স্থান ঘুরে এসেছেন।

ভোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকিরুল হক, শেখ আবু তালেব ও সাবিহা ইয়াসমিন, ভোলা পৌর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শাখাওয়াত হোসেন, চরনোয়াবাদ মুসলিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের, মোঃ আবু তাহের ও মোঃ আনোয়ার পারভেজ, টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহনেওয়াজ প্রত্যেকে ১ বার করে, ভোলা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের মোঃ কামরুজ্জামান ২ বার, ভোলা পৌর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ ৩ বার ও ক্লাষ্টার কোঅর্ডিনেটর অসীম আচার্য্য ৪ বার যুক্তরাজ্যের বিদ্যালয়গুলো পরিদর্শন করে ভোলা জেলার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর বিভিন্ন কর্মকান্ডসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন তথ্যাবলী বিনিময় করেন।

সূত্র বলছে, স্কুল পার্টনারশীপের মাধ্যমে কানেক্টিং ক্লাশরুমস প্রোগ্রাম পরিচালনা করে ব্রিটিশ কাউন্সিল। ২০০৯ সাল থেকে বর্তমানেও ব্রিটিশ কাউন্সিল ভোলা জেলার ৫টি বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বিশ্ব নাগরিকত্ব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, প্রফেসনাল ডেভেলপমেন্ট, জলবায়ু পরিবর্তন সহ বিভিন্ন বিষয়ের উপরে প্রশিক্ষন, কর্মশালার আয়োজন করে।

অন্যদিকে এই বিদ্যালয়গুলো বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রাম  আয়োজন করে থাকে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপন, মেলা, কর্মশালা সহ সচেতনতামূলক কর্মকান্ড, বৃক্ষ রোপন এবং ইংরেজী ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের উপর বিশেষ কর্মশালা। বর্তমানে যুক্তরাজ্যের কুইন এলিজাবেথ গ্রামার স্কুল এর সাথে ভোলা জেলার শুধুমাত্র টবগী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নলিনী দাস মাধমিক বিদ্যালয়ের স্কুল পার্টনারশীপ রয়েছে।

ব্রিটিশ কাউন্সিল অ্যামবাস্যাডর নিয়োগের মাধ্যমে ভোলা জেলার প্রায় ১০০টি বিদ্যালয় ব্রিটিশ কাউন্সিল স্কুলস অনলাইন এ নিবন্ধিত হয়েছে। একই সাথে বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সোস্যাল একশন প্রোগ্রাম সহ বিভিন্ন প্রশিক্ষন ও কর্মশালার আয়োজন করছে।

এই কার্ক্রমের ফলে সন্তুষ্ট ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও অভিভাবকেরা। তথ্য-প্রযুক্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে জীবন বদলানোর সুযোগ পেয়ে আনন্দিত পড়ুয়ারা। ওরা মনে করে শিক্ষার সঙ্গে তথ্য-প্রযুিক্তর জ্ঞানের কোন বিকল্প নেই।


মোজিলার ভিডিও চ্যাট সার্ভিস ‘হ্যালো’

অনলাইনে ধারাবাহিক নাটক !!


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
কার্ডে ঈদের কেনাকাটায় ব্যাংকের ছাড়
এসপি বাবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে নিয়ে গেছে পুলিশ
পৌর নির্বাচন নিয়ে মোবাইল অ্যাপ
নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির উদ্যোগে সাড়া মেলেনি