সর্বশেষ সংবাদ
ঢাকা, এপ্রিল ১৩, ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩১
ICT NEWS (আইসিটি নিউজ) | Online Newspaper of Bangladesh |
বুধবার ● ১৮ জুলাই ২০১২
প্রথম পাতা » আইসিটি আপডেট » ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি রোধে কঠোর হচ্ছে বিটিআরসি
প্রথম পাতা » আইসিটি আপডেট » ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি রোধে কঠোর হচ্ছে বিটিআরসি
৬৮২ বার পঠিত
বুধবার ● ১৮ জুলাই ২০১২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি রোধে কঠোর হচ্ছে বিটিআরসি

 ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি রোধে কঠোর হচ্ছে বিটিআরসি

।। সুমন আফসার ।।
সেলফোনের সাবস্ক্রাইবার আইডেনটিটি মডিউল (সিম) নিবন্ধন বিষয়ে নীতিমালা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। সিম নিবন্ধনে বিদ্যমান নীতিমালার ওপর ভিত্তি করেই নতুন নীতিমালা তৈরি হবে। ধারণা করা হচ্ছে, এতে সিম নিবন্ধন বিষয়ে অপারেটরদের ওপর নিয়ন্ত্রণ বাড়বে বিটিআরসির। দুই মাসের মধ্যে এ নীতিমালা চূড়ান্ত করা সম্ভব হবে বলে বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে।
এ প্রসঙ্গে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) জিয়া আহমেদ  বলেন, সিম নিবন্ধন প্রক্রিয়ার বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে কাজ করছে বিটিআরসি। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। নিবন্ধন ছাড়া সংযোগ দেয়ার কারণে সন্ত্রাসীদের শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই নতুন গ্রাহক সংযোগ না দেয়ার জন্য সেলফোন অপারেটরদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, ফোনে চাঁদা দাবি ও হুমকি প্রদানসহ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১০ সালের জুনে একটি কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে ওই বছরের আগস্টে আরইউআইএম (রিমুভেবল ইউজার আইডেনটিটি মডিউল) ও সিমের গ্রাহক নিবন্ধন-সংক্রান্ত নীতিমালা তৈরি করে বিটিআরসি। নীতিমালায় ২০১০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেলফোন অপারেটরদের দুই স্তরবিশিষ্ট আরইউআইএম ও সিমের বিতরণব্যবস্থা গড়ে তুলতে নির্দেশ দেয় বিটিআরসি। পরিবেশক ও খুচরা বিক্রেতার সমন্বয়ে এ বিতরণ ব্যবস্থা কার্যকর করতে বলা হয় তাদের। এ সময়ের ভেতরে অপারেটরদের সব পরিবেশক ও খুচরা বিক্রেতার ছবিসহ বিভিন্ন তথ্য বিটিআরসিকে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।
এ নীতিমালায় নতুন খুচরা বিক্রেতা নিয়োগ দিতে হলে ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি নির্ধারণ করে দেয়া হয়। এ ছাড়া খুচরা বিক্রেতারা অন্য কাউকে খুচরা বিক্রেতা হিসেবে নিয়োগ দিতে পারবে না বলেও উল্লেখ করা হয়। ২০১০ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন সংযোগ প্রদানে গ্রাহক নিবন্ধন ফরম ব্যবহারের নির্দেশ দেয়া হয়।
তবে নীতিমালা জারির পরও বিটিআরসির এ নির্দেশনা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করেনি কোনো অপারেটরই। গ্রাহক নিবন্ধন ছাড়াই সংযোগ প্রদান, নিয়ন্ত্রণহীনভাবে খুচরা বিক্রেতা নিয়োগদানসহ বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে অপারেটরদের বিরুদ্ধে। নিবন্ধন ছাড়াই সংযোগ বিক্রির কারণে সেলফোন ব্যবহার করে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতরা পার পেয়ে যাচ্ছে সহজে। এদিকে বিদ্যমান নীতিমালায় সিম নিবন্ধন ছাড়া সংযোগ বিক্রি করলে অপারেটরদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক কোনো ব্যবস্থা নেয়ার বিধান নেই।
সিম নিবন্ধন নিশ্চিত করতে সিম কেনার পর নিবন্ধনের তথ্য যাচাই-বাছাই করে সংযোগ চালুর বিষয়ে সম্প্রতি এক নির্দেশনা জারি করেছে বিটিআরসি। এতে বর্তমানে সিম কেনার সঙ্গে সঙ্গে সংযোগ চালুর যে ব্যবস্থা রয়েছে, তা বন্ধ হবে। নতুন নীতিমালায় এসব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। সিম নিবন্ধনে নীতিমালা তৈরি হলে আইন লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে পারবে বিটিআরসি।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
রবির ডেটা স্পিড এবং ভয়েস কোয়ালিটি বৃদ্ধি
স্মার্টফোনের সাথে বিনামূল্যে ইন্টারনেট দিচ্ছে বাংলালিংক
রাইডার পার্টনারদের জন্য ফুডপ্যান্ডার ইফতার
ঈদযাত্রায় ঘরমুখো মানুষের পাশে বাংলালিংক
রিয়েলমি সি৬৭ স্মার্টফোন কিনে ১ লাখ টাকা জিতলেন গ্রাহক
রমজান মাসে টিকটক কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের ব্যাতিক্রমি আয়োজন
ব্যাঙ্গালোর এআই সামিটে রিভ চ্যাট
ঈদ যাত্রীদের জন্য নেটওয়ার্ক আরো শক্তিশালী করল গ্রামীণফোন
আবারও বিসিএস সভাপতি সুব্রত সরকার ও মহাসচিব কামরুজ্জামান
২০৩১ পর্যন্ত কর অব্যাহতি চায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠনগুলো