সর্বশেষ সংবাদ
ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮
ICT News | Online Newspaper of Bangladesh |
সোমবার ● ২৬ জানুয়ারী ২০১৫
প্রথম পাতা » ডিজিটাল বাংলা » যে ভাবে গুগলের টেকনিক্যাল প্রোডাক্ট ম্যানেজার হলেন শিশির খান
প্রথম পাতা » ডিজিটাল বাংলা » যে ভাবে গুগলের টেকনিক্যাল প্রোডাক্ট ম্যানেজার হলেন শিশির খান
৪০৬ বার পঠিত
সোমবার ● ২৬ জানুয়ারী ২০১৫
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

যে ভাবে গুগলের টেকনিক্যাল প্রোডাক্ট ম্যানেজার হলেন শিশির খান

।। মেহেদী হাসান ।।

বর্তমানে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি গুগলে কাজ করলেও বিশ্বখ্যাত এই প্রতিষ্ঠানে ২০০৪ সালের আগে কোনো বাংলাদেশির পদচারণ ছিল না। সে বছরই প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় গুগলের প্রধান কার্যালয়ে সফটওয়্যার প্রকৌশলী পদে যোগ দেন মোহাম্মাদ শিশির খান। তিনি এখন গুগলের কারিগরি পণ্য ব্যবস্থাপক (টেকনিক্যাল প্রোডাক্ট ম্যানেজার)।
বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের গুগলে নিয়োগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে ৪ জানুয়ারি ১১ সদস্যের দলের প্রধান হিসেবে চার বছর পর বাংলাদেশে এসেছিলেন শিশির খান। ২২ জানুয়ারি রাজধানীর বারিধারায় কথা হয় তাঁর সঙ্গেযে ভাবে গুগলের টেকনিক্যাল প্রোডাক্ট ম্যানেজার হলেন শিশির খান

সিরাজগঞ্জের ছেলে শিশির ১৯৯৫ সালে এসএসসি পরীক্ষা শেষে সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্র চলে যান। সেখানে দ্বাদশ শ্রেণির পড়াশোনা শেষে প্রথমে মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটি ও পরে ওয়েন স্টেট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার কৌশল বিষয়ে স্নাতক হন। পুরো পরিবার ও আত্মীয়স্বজনেরা যুক্তরাষ্ট্রে থাকায় বাংলাদেশে খুব একটা আসা না হলেও দেশকে নিয়ে সব সময় ভাবেন, দেশের সব খবর রাখেন। বললেন, ‘বাংলাদেশের প্রযুক্তি জগৎ যেন শক্তিশালী হয়ে বেড়ে উঠতে পারে, সে জন্য গুগলে আমরা বাংলাদেশিরা সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছি। গুগলের সব সেবা বাংলায় রূপান্তর করা হচ্ছে। বাংলাদেশে গুগলের নানা কার্যক্রম চালু হয়েছে। গুগল বাসের মাধ্যমে আমরা প্রায় সাড়ে তিন শ স্কুল-কলেজের প্রায় দেড় লাখ শিক্ষার্থীকে ইন্টারনেটের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি।’ এ কাজে গুগলকে সহায়তা করছে অনেকগুলো সংগঠন।

গুগলে শুরুটা কীভাবে?

শিশির খান বলেন, ‘আবেদনের সময় আমি জানতাম না যে এটা গুগল। মিশিগান স্টেটটা মূলত গাড়ির জন্য বিখ্যাত। তাই আমি ক্যালিফোর্নিয়ায় চলে আসি। সফটওয়্যার প্রকৌশলীর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে আবেদন করেছিলাম। সে সময় গুগলে পিএইচডি ডিগ্রিধারী ছাড়া কাউকে নিত না। আমার সাক্ষাৎকারটা খুব ভালো হয়েছিল বলে আমি স্নাতক হয়েও সুযোগ পেয়েছিলাম। এক হাজার জনের সেই প্রতিষ্ঠানে এখন একেকটা দলেই হাজার জনের বেশি লোক কাজ করছেন। আমার কাজটা মূলত পরিকল্পনা অনুযায়ী কোনো পণ্যের বাস্তবায়ন করা। গুগলে কাজটা বেশ আনন্দদায়ক। সবাই মিলে একটা ঘরে ধারণা ভাগাভাগি করে কাজ করি আমরা। দায়িত্ব ঠিকমতো পালন করলাম কি না, সেটাই বড় কথা। ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই।’

গুগল বাংলাদেশকে খুব গুরুত্বের সঙ্গে দেখে

শিশির খানের কাছ থেকে জানা গেল গুগল বাংলাদেশকে খুব গুরুত্বের সঙ্গে দেখে। এর কারণ হিসেবে জানালেন সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বাংলাদেশে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার ৬-এর ওপরে থাকছে। এখানকার বাজার সম্প্রসারিত হচ্ছে। দ্বিতীয়ত, আগের চেয়ে বাংলাদেশে মুঠোফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে বহুগুণ, যারা ধীরে ধীরে ইন্টারনেট ব্যবহারে দক্ষ হয়ে উঠছে।

গুগলে চাকরি স্বপ্নের মতো

গুগলে চাকরি অনেকের কাছেই অনেকটা স্বপ্নের মতো। তবে নিয়োগপদ্ধতিটা সময়সাপেক্ষ। অনেক স্তর পেরিয়ে তবেই ঠিক হয়, কে সুযোগ পাবে। সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিয়োগে তুলনামূলক ঝামেলা কম। কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ থেকে বেশি সুযোগ পেলেও যেকোনো বিভাগের শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারেন। শিশির খান বলেন, প্রোগ্রামিংটা আসলে একটা ভাষার ব্যাকরণের মতো। সেই ব্যাকরণ, সেই অ্যালগরিদমটা কে কত দক্ষতার সঙ্গে ব্যবহার করতে পারছে, সেটা দেখা হয়। সমস্যা সমাধান করতে পারছে কি না, সেটাই মুখ্য। তিনি জানালেন গুগলে এখন নারী কর্মী এবং বিভিন্ন দেশ ও সম্প্রদায়ের কর্মীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। যাতে গুগলে সবার অংশগ্রহণ বাড়ে।

ব্যক্তিগত জীবন

ব্যক্তিগত জীবনে কিছুদিন আগে শাহরিন রেজার সঙ্গে সংসার পেতেছেন শিশির। ইউনিভার্সিটি অব কেমব্রিজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এমফিল করলেও দেশের মানুষকে আর্সেনিক দূষণ থেকে মুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন শাহরিন। চালু করেছেন পিউরিফএইড নামের প্রতিষ্ঠান।
শিশির খান মনে করেন, শেখার কোনো শেষ নেই। নতুন কিছু জানার চেষ্টা থাকতে হবে। মুখস্থ নয়, বরং কেন হলো, তা জানতে হবে। প্রযুক্তিজগৎটা সারা বিশ্বেই বাড়ছে। এখানে অপার সম্ভাবনা। সেই সম্ভাবনা কাজে লাগাতে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে।



ডিজিটাল বাংলা এর আরও খবর

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিপিও শিল্প খাত করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিপিও শিল্প খাত
করোনার ঝুঁকি নিয়ে সকল প্রকার ওয়াটার ফিল্টার পাইকারি ও খুচরা মুল্যে  ঢাকা সহ সারা বাংলাদেশে হোম ডেলিভারি করছি- আজিজুল ইসলাম করোনার ঝুঁকি নিয়ে সকল প্রকার ওয়াটার ফিল্টার পাইকারি ও খুচরা মুল্যে ঢাকা সহ সারা বাংলাদেশে হোম ডেলিভারি করছি- আজিজুল ইসলাম
বাংলাদেশে দ্রুত বিকাশ লাভ করছে ডিজিটাল অর্থনীতি, সব ধরনের সহযোগিতা করবে যুক্তরাজ্য। বাংলাদেশে দ্রুত বিকাশ লাভ করছে ডিজিটাল অর্থনীতি, সব ধরনের সহযোগিতা করবে যুক্তরাজ্য।
আইওটি, বিগডাটা, রোবটিক প্রযুক্তির মহাসড়ক হচ্ছে ফাইভ-জি: মোস্তাফা জব্বার আইওটি, বিগডাটা, রোবটিক প্রযুক্তির মহাসড়ক হচ্ছে ফাইভ-জি: মোস্তাফা জব্বার
৭৭২ দুর্গম ইউনিয়নে যাচ্ছে দ্রুত গতির ইন্টারনেট ৭৭২ দুর্গম ইউনিয়নে যাচ্ছে দ্রুত গতির ইন্টারনেট
৩০ নভেম্বরের পর অবৈধ অনলাইন পোর্টালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: মুরাদ হাসান ৩০ নভেম্বরের পর অবৈধ অনলাইন পোর্টালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: মুরাদ হাসান
সেনাবাহিনীতে তথ্য প্রযুক্তির সুবিধা যথাযথভাবে কাজে লাগান: রাষ্ট্রপতি সেনাবাহিনীতে তথ্য প্রযুক্তির সুবিধা যথাযথভাবে কাজে লাগান: রাষ্ট্রপতি
অ্যাপিকটা পুরস্কার পেল জেনেক্স ইনফোসিস ও এটুআই অ্যাপিকটা পুরস্কার পেল জেনেক্স ইনফোসিস ও এটুআই
চার বছরে ডিজিটাল অর্থনীতির উন্নয়নে শীর্ষ চারে বাংলাদেশ চার বছরে ডিজিটাল অর্থনীতির উন্নয়নে শীর্ষ চারে বাংলাদেশ
৫০টি গ্রামকে ‘ডিজিটাল ভিলেজ’ হিসেবে গড়ে তুলবে সরকার ৫০টি গ্রামকে ‘ডিজিটাল ভিলেজ’ হিসেবে গড়ে তুলবে সরকার

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
উইন্ডোজ ১১ অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সমর্থন করবে
বাংলাদেশে গুজব ছড়াতে ও সাইবার হামলায় একটি রাষ্ট্র প্রাতিষ্ঠানিকভাবে অর্থ বিনিয়োগ করছে- টিএমজিবির ভার্চুয়াল সেমিনারে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক
শুক্র গ্রহে রয়েছে প্রাণ !
আগামী বছর থেকেই ফাইভ-জি স্মার্টফোনের বাজার আবার ঘুরে দাঁড়াবে
অনলাইনে ইনফো-সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্পের স্টীয়ারিং কমিটির সভা
করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিপিও শিল্প খাত
করোনার ঝুঁকি নিয়ে সকল প্রকার ওয়াটার ফিল্টার পাইকারি ও খুচরা মুল্যে ঢাকা সহ সারা বাংলাদেশে হোম ডেলিভারি করছি- আজিজুল ইসলাম
কোভিড-১৯ মোকাবিলায় ৪০ লক্ষ টাকা অনুদান দিচ্ছে শাওমি বাংলাদেশ
বাংলাদেশে দ্রুত বিকাশ লাভ করছে ডিজিটাল অর্থনীতি, সব ধরনের সহযোগিতা করবে যুক্তরাজ্য।
ক্লাউড সেবা অ্যাজারের ৪ কোটি ৪০ লাখ ব্যবহারকারী চুরি যাওয়া পাসওয়ার্ড ব্যবহার করছে